শুক্রবার, জুন ২১, ২০২৪
No menu items!
বাড়িজাতীয়ডেঙ্গু ভয়ঙ্কর হবে আগস্টেই

ডেঙ্গু ভয়ঙ্কর হবে আগস্টেই

২০১৯ সালে যেভাবে তাণ্ডব চালিয়েছিল ডেঙ্গু, এ বছর তারচেয়ে কয়েকগুণ বেশি তাণ্ডব চালাবে। এর কারণ- এডিস মশার লার্ভার বংশবিস্তারের ঘনত্ব আর প্রজনন স্থল এবার কয়েকগুণ বেশি।

এ নিয়ে চরম উদ্বেগ তৈরি হয়েছে রাজধানীবাসির মাঝে। একইভাবে দেশের অন্যান্য নগরীতেও ছড়িয়েছে এই উদ্বেগ।

রাজধানী ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনের ৫৫ ওয়ার্ডের বাসিন্দারা ডেঙ্গু সংক্রমণের উচ্চঝুঁকিতে রয়েছে। একইভাবে বাড়ছে চট্টগ্রাম, বরিশালসহ দেশের অন্যান্য জেলায় ডেঙ্গু সংক্রমণের হার।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এখনি ব্যবস্থা না নিলে আগস্টে ভয়াবহ আকার ধারণ করবে ডেঙ্গু পরিস্থিতি।

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক কীটতত্ববিদ ড. কবিরুল বাশার সংবাদ প্রকাশকে বলেন, ‘প্রাকবর্ষা জরিপে লার্ভা বেশি পাওয়ার অর্থ সামনে পরিস্থিতি আরও ভয়াবহ আকার ধারণ করবে। এখন ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত রোগী বাড়তে থাকবে। এ পরিস্থিতি আগস্ট পর্যন্ত চলতে থাকবে।’

এই বিশেষজ্ঞ বলেন, ‘শুধু ঢাকা নয় সারা দেশেই আক্রান্তের হার দ্রুত বাড়বে। এরমধ্যে গাজীপুর, চট্টগাম, পটুয়াখালী ও বরিশালে ডেঙ্গুর প্রাদুর্ভাব বেশি থাকবে।’

বর্তমান পরিস্থিতি মোকাবিলার পরামর্শ দিয়ে তিনি বলেন, ‘এখন হটস্পট ম্যানেজমেন্টে জোর দিতে হবে। হাসপাতাল থেকে ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীর ঠিকানা নিয়ে হটস্পট শনাক্ত করতে হবে।

আবার যেসব জায়গায় রোগী নেই সেখানে লার্ভা শনাক্ত ও ধ্বংস করতে হবে। এ কাজে স্থানীয় জনগণকে সম্পৃক্ত করে সচেতনতা বাড়াতে হবে।’

স্বাস্থ অধিদপ্তর বলছে, ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনের সব এলাকাতেই বর্তমানে ডেঙ্গুর জীবাণুবাহি এডিস মশার উপস্থিতি বেশি।

এবারের ডেঙ্গুর মৌসুম দীর্ঘ হওয়ার আশঙ্কাও রয়েছে। এই মুহুর্তে নগরবাসি সচেতন না হলে পরিস্থিতি ভয়ানক আকার ধারণ করবে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর সূত্রে জানা যায়, এবছর ৬ মাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৮ হাজার ২৪৮ জন। মারা গেছে ৫০ জন। গত ৫ দিনে মারা গেছে আরও ১৫ জন।

প্রসঙ্গত, বাংলাদেশে গত শাতাব্দীর ষাটের দশকে প্রথম ডেঙ্গু শনাক্ত হয়। এরপর ২০১৯ সালেই ডেঙ্গু সংক্রমণে সবচেয়ে খারাপ পরিস্থিতি তৈরি হয়।

সেই বছর ১ লাখ ১ হাজার ৩৫৪ জন রোগী আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন। এরমধ্যে মৃত্যু ঘটে ১৭৯ জনের।

আক্রান্তদের বেশিরভাগই ছিলেন রাজধানী ঢাকার বাসিন্দা। এরপর সারা দেশে ছড়ায় ডেঙ্গু।

ডেঙ্গু পরিস্থিতি নিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহেদ মালেক বলেন, দেশে আশঙ্কাজনক হারে বাড়ছে ডেঙ্গু। মশা নিধনে দায়িত্বরতদের আরও বেশি বেশি কার্যকর ভুমিকা পালন করতে হবে।

গতকাল বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের সুপার স্পেশালাইজড হাসপাতালের আন্তঃবিভাগ ও অপারেশন কার্যক্রম উদ্বোধনকালে মন্ত্রী এ কথা বলেন।

সাবস্ক্রাইব
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments
আরো দেখুন

জনপ্রিয় সংবাদ

মানবতার সেবায় কালিয়াকৈর গ্রুপ

টিভিতে আজকের খেলা