রবিবার, মে ২৬, ২০২৪
No menu items!
বাড়িসারাদেশবাঁচতে চায় টাঙ্গাইলের এনামুল ও তার সন্তান আছিয়া

বাঁচতে চায় টাঙ্গাইলের এনামুল ও তার সন্তান আছিয়া

টাঙ্গাইলের এনামুল ও তার সন্তান আছিয়ার জীবন বাঁচাতে এগিয়ে আসুন।  কিশোর বয়স থেকেই জীবন যুদ্ধে নেমেছিলেন এনামুল (৪৪)। গ্রাম: তেলিনা, ইউনিয়ন: আজগানা থানা: মির্জাপুর, জেলা: টাংগাইল (পিতা: মরহুম আছর উদ্দিন মাস্টার, তেলিনা সরকারি প্রা. বিদ্যালয়) কাজ শুরু করেন মোটর শ্রমিক হিসেবে।

এর দীর্ঘদিন পর ২০০৮ সালে উন্নত জীবনের আশায় পাড়ি জমান মধ্যপ্রাচ্যে। কিন্তু ভাগ্য সহায় হয়না এনামুলের। জীবন বদলানোর ওই চেষ্টায় আরো সংকটে পতিত হয় তার জীবন। কোম্পানির অবস্থা ভাল না হওয়ার ফিরে আসতে হয় প্রবাস থেকে। এরপর আবারো যোগ দেন মোটর শ্রমিকের কাজে। ২০১৩ সালে কিছু শারিরিক জটিলতা নিয়ে ডাক্তারের শরণাপন্ন হন এনামুল। ডাক্তার জানায় তার একটি কিডনিতে সমস্যা।

তবে ঔষধ সেবনের মাধ্যমেই কিডনির সমস্যা ভাল হয়ে যাবে জেনে স্বস্তি পান এনামুল। কিছুদিন ঔষধ সেবনের পর ভাল হয়ে গেছেন ভেবে ঔষধ সেবন বন্ধ করে দেন তিনি। এরপর ২০১৯ সালে এসে জানতে পারেন তার দুটোই কিডনির ৯২ শংতাশই ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে গেছে। তারপর থেকে এ পর্যন্ত ডায়ালাইসিস করে করে টিকে আছেন তিনি। কিন্তু এই টিকে থাকায় তাকে বিক্রি করতে হয়েছে পৈত্রিক সম্পত্তির সিংহভাগ। ডায়ালাইসিস বাবদ প্রতিমাসে ২৫-৩০ হাজার টাকা খরচ করতে করতে এনামুল এখন নিঃস্ব প্রায়।

জরুরি হয়ে পড়েছে কিডনি প্রতিস্থাপন। যার ব্যয়ভার সম্পূর্ণভাবে বহন করা এনামুলের পক্ষে অসম্ভব। এখানেই শেষ নয় এক ছেলে ও দুই কন্যা সন্তানের জনক এনামুলের মেঘলা আকাশের উপাখ্যান। এনামুলের ছোট্র শিশু কণ্যা আছিয়া (০৭) জন্মের পর থেকেই জটিল রোগ লিপুমায় আক্রান্ত। জটিল এই রোগে আক্রান্ত হয়ে দিনকে দিন সরু হয়ে যাচ্ছে আছিয়ার নিম্নাঙ্গ। ধীরে ধীরে এগিয়ে যাচ্ছে পঙ্গুত্বের দিকে। অপারেশনের মাধ্যমে আছিয়ার ওই টিউমার কেটে ফেলা যতটা ব্যয়বহুল তার চাইতেও বেশি ঝুঁকিপূর্ণ।

নিজের কিডনি সমস্যা আর ছোট্র মেয়েটির জটিল রোগ, অর্থের অভাবে বড় ছেলের পড়াশোনা বন্ধ আর পঞ্চম শ্রেণীতে বৃত্তি পাওয়া বড় মেয়ের পড়াশোনাও বন্ধ হওয়ার উপক্রম। সবমিলিয়ে মেঘে ঢাকা উপজেলার আজগানা ইউনিয়নের তেলিনা গ্রামের মৃত আছর মাস্টারের ছেলে এনামুল হকের পুরো আকাশ। সন্তানদের পড়াশোনা ছোট্র আছিয়ার চিকিৎসার জন্য কর্মে ফিরতে চান এনামুল। তাই ভিটেমাটি ছাড়া সর্বশেষ সম্ভল একটি কৃষিক্ষেত বিক্রি করে নিজের কিডনি প্রতিস্থাপনের উদ্যোগ নিয়েছেন তিনি।

তবে ওই ক্ষেত বিক্রি করে এনামুল সর্বোচ্চ ৫ লাখ টাকার সংস্থান করতে পারবেন। প্রয়োজন আরো ৮-১০ লাখ টাকার। তার এই দুঃসময়ে আমরা গ্রামবাসী তার পাশে থাকার উদ্যোগ নিয়ে প্রায় দেড় লাখ টাকা সংগ্রহ করেছি আরো বেশ কিছু টাকা উঠানোর প্রক্রিয়া চলছে। আল্লাহ যদি সহায় হোন, যাকাত বা আপনাদের সামান্য হোক সামর্থ অনুযায়ী যে কোন আর্থিক সহযোগিতা পাঠান। যা তার জীবন বাঁচাতে পারে, তাই এই বিনীত নিবেদন আপনার কাছে.. সাহায্য পাঠানো ও তার সাথে যোগাযোগ করুন- এনামুল (ব্যক্তিগত বিকাশ, নগদ নাম্বার): ০১৮১৮২২৩৮১২ ব্যাংক হিসাব: ০২০০০১৬০৭০৯৭৬ অগ্রণী ব্যাংক কালিকৈর, গাজীপুর শাখা।

সাবস্ক্রাইব
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments
আরো দেখুন

জনপ্রিয় সংবাদ

মানবতার সেবায় কালিয়াকৈর গ্রুপ

টিভিতে আজকের খেলা