শনিবার, ২৫ জুন ২০২২ , ১১ আষাঢ় ১৪২৯

Ads

প্রকাশ :১২ মে ২০২২ , ০১:২১ PM

যশোরে স্ত্রীকে ভারতে বিক্রির চেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে হত্যা, স্বামী গ্রেফতার

single image

বাংলাদেশ পুলিশের ইন্সপেক্টর জেনারেল ড.বেনজির আহমেদ বিপিএম (বার) এঁর নির্দেশে বাংলাদেশ পুলিশ দেশের সম্মানিত নাগরিকদের জন্য টেকসই নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে কঠোর পরিশ্রম করে যাচ্ছে । তাঁর দিক নির্দেশনায় যশোর জেলার পুলিশ সুপার প্রলয় কুমার জোয়ারদার, বিপিএম (বার), পিপিএম যশোর জেলাকে অবৈধ মাদকমুক্ত, জঙ্গিবাদমুক্ত ও সন্ত্রাসমুক্ত করতে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করে দৃষ্টান্ত স্থাপন করে জনগণের বিশ্বাস ও আস্থা অর্জন করে আসছে।

১৫ই মার্চ যশোর কোতয়ালী থানাধীন বানিয়ারগাতী সাকিনস্থ ইউনুস আলীর ছেলে কামরুল ইসলাম (৩০) তার নিজ স্ত্রী সালমা খাতুন (২৪) কে চাকুরী দেওয়ার প্রলোভন দিয়ে ফুসলিয়ে ভারতে নিয়ে যায়।

পরবর্তীতে ৮ মে  স্বামী কামরুল ইসলাম দেশে ফিরলেও স্ত্রী সালমা খাতুন ফিরে না আসলে সালমা খাতুনের পরিবারের লোকজন কামরুল ইসলামকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে খারাপ আচরন করে বাড়ী থেকে বের করে দেয়। ভারতে সালমা খাতুনের ব্যবহৃত মোবাইল ফোনও বন্ধ পেয়ে সালমা খাতুনের পিতা সহিদুল ইসলাম ১১ই মে  তারিখে কোতয়ালী মডেল থানায় একটি মানব পাচার প্রতিরোধ ও দমন আইনে মামলা রুজু করে। কোতয়ালী মডেল থানার মামলা নং-২৫ তাং-১১/০৫/২০২২ ইং ধারা-মানব পাচার প্রতিরোধ ও দমন আইন ২০১২ এর ৭/৮/৯/১০(১)/১৪ ।
গ্রেফতার অভিযান :
ঘটনাটি চাঞ্চল্যকর হওয়ায় জেলার পুলিশ সুপার জনাব প্রলয় কুমার জোয়ারদার, বিপিএম (বার) পিপিএম রহস্য উদঘাটন ও ভিকটিম উদ্ধারের নিমিত্তে কোতয়ালী থানা পুলিশ ও ডিবি পুলিশকে নির্দেশনা প্রদান করেন।
পুলিশ সুপারের দিক-নির্দেশনায় কোতয়ালী থানা পুলিশ ও ডিবি পুলিশের একটি চৌকশ টিম তদন্তে নামে এবং জানতে পারেন যে, ভিকটিম সালমা খাতুনকে ভারতের গুজরাট রাজ্যে নিয়ে বিক্রির চেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে সালমা খাতুনকে হত্যা করে কামরুল দেশে এসে পালিয়ে আছে। অতঃপর মামলার তদন্তকারী এসআই বিমান তরফদারের অধিযাচনের প্রেক্ষিতে ওসি ডিবি রুপন কুমার সরকার, পিপিএম এর নির্দেশে এসআই মফিজুল ইসলাম, পিপিএম এর নেতৃত্বে থানা ও ডিবির একটি চৌকশ টিম অদ্য ইং ১২/০৫/২০২২ তারিখ রাত ১২.০০ ঘটিকার সময় কোতয়ালী থানাধীন বসুন্দিয়া এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে ভিকটিম সালমা খাতুনের পাচারকারী স্বামী কামরুল ইসলামকে গ্রেফতার করে জিজ্ঞাসাবাদে জানতে পারেন ইং ১৫/০৪/২০২২ তারিখে আসামী কামরুল ইসলাম (৩০) তার নিজ স্ত্রী সালমা খাতুন (২৪) কে চাকুরী দেওয়ার প্রলোভন দিয়ে ফুসলিয়ে ভারতে নিয়ে গুজরাট রাজ্যের আনান্দ্ব জেলার ভালেজ থানা এলাকায় আটক রেখে বিক্রির চেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে সেখানে একটি ভাড়া বাসার মধ্যে নাকে-মুখে আঘাত করে ও শ্বাসরোধ করে হত্যা করে লাশ ফেলে রেখে দেশে পালিয়ে আসে।
গ্রেফতারকৃত আসামীদের নাম ঠিকানা :
১। মোঃ কামরুল ইসলাম (৩০), পিতা- ইউনুস আলী, সাং-বানিয়ারগাতী, থানা-কোতয়ালী, জেলা-যশোর।
উদ্ধারকৃত আলামত :
১। আসামীর ০৩টি পাসপোর্ট।
২। ভিকটিম সালমা খাতুনের পাসপোর্ট।
৩। ভিকটিম সালমা খাতুনের মোবাইল ফোন।

এই বিভাগের আরো খবর ::

নামাজের সময়সূচী

তারিখ ২৫ জুন ২০২২

  • ফজর

    ৫:১৭

  • যোহর

    ১২:১৩

  • আছর

    ৪:৪৫

  • মাগরিব

    ৫:৫২

  • এশা

    ৭:০৪

  • সূর্যোদয় : ৬:৩৪
  • সূর্যাস্ত : ৫:৫২
Image

অনলাইন জরিপ

করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় ‘লকডাউন’ নিয়ে আপনি কি মনে করছেন?